Home » entertainment » পুরষদের শরীরের কোন অংশটি নারীদের সবচেয়ে প্রিয় জানেন? দেখে নিন কি বলছে সমীক্ষা

পুরষদের শরীরের কোন অংশটি নারীদের সবচেয়ে প্রিয় জানেন? দেখে নিন কি বলছে সমীক্ষা

নারীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পুরুষরা কিই না করে থাকে! কখনও চুলের স্পাইক তো কখনও দামি বাইক, নানারকম চেষ্টায় তারা নজরকাড়তে চায় নারী হৃদয়ে। তাই মেয়েদের মুখোমুখি হলে পোশাক আশাক থেকে শুরু করে চলাফেরা এমনকি কথাবার্তাতেও ফুটে ওঠে কারোর কারোর সেসব কায়দা কানুন। কেউবে একটু বেশি ধ্যান দেয় চুলের প্রতি।

কারণ কথাতেই আছে ‘কেশই হলো বেশ’ তাই অনেকে মনে করেন সুন্দর সুগঠিত চেহারার সাথে পরিপাটি চুলের স্ট্যাইলও গলিয়ে ফেলতে পারে নারী হৃদয়। কিন্তু আসলে কি তা? শুধু কি চুলের উপরই নজর রাখেন মেয়েরা, নাকি মানবশরীরের অন্য কোনো অঙ্গের প্রতিও রয়েছে তাদের আকর্ষণ?

এনিয়ে ধোঁয়াশার শেষ ছিলো না তবে তা কিছুটা হলেও দূর হলো সম্প্রতি। সৌজন্যে ট্যুইটার এবং সাধারণ একটি পুরুষ হস্তের ছবি।ডিইই’ নামের একটি অ্যাকাউন্ট থেকে একটি হাতের ছবি পোস্ট করে বলা হয়েছিল, ‘নারীদের জন্য, যাঁদের হাত পছন্দ।’ পুরুষ চোখে হাতটিতে তেমন বিশেষত্ব চোখে পড়বে না। হালকা আঁচড়ের দাগ আছে তাতে। এ ছাড়া বিশেষত্ব কিছু নেই। অথচ সেই হাতের ছবিটাই ‘লাইক’ পেয়েছে ২৮ হাজার এবং ‘রি-টুইট’ হয়েছে ৬ হাজার! টুইটারে যাঁদের যাতায়াত নিয়মিত, তাঁরা জানেন, খুব কম টুইট এতটা আলোড়ন ফেলতে পারে।

শুধু নারী নন, এই হাতের বিশেষত্ব বুঝতে তাতে হুমড়ি খেয়ে পড়েছেন অনেক পুরুষও। নিজেদের হাতের ছবি তুলে তাঁরা সেখানে ‘রি-টুইট’ করছেন। উদ্দেশ্য একটাই, আমাদের হাতই-বা কী দোষ করল!

অনেকে ব্যাপারটা বোঝার চেষ্টা করছেন। তাঁদের প্রশ্ন, এক হাত নিয়ে এমন হাতাহাতি হওয়ার জোগাড় কেন? কী আছে পুরুষদের হাতে। সেখানেই অনেকে উত্তর দিয়েছেন, ‘ওঁরা (নারী) ছেলেদের শিরা-উপশিরা বোঝা যায়—এমন হাত পছন্দ করে।’ এক নারীর আবার একটু কাটাছেঁড়া হাত বেশি পছন্দ। তাঁর মন্তব্য, ‘ঠিক জানি না কেন, তবে কাটার দাগটায় আমি শিহরিত।

তবে এক্ষেত্রে একই কথা বলছে বিজ্ঞানও। তার মতে, পুরুষদের হাত অনেকসময়ই নারী দের কাছে দৃষ্টি নন্দিত হয়ে উঠতে পারে। একটু কাঁটা ছেঁড়া আর একটু শিরা উপশিরা বের করা হাত তাদের খুব প্রিয়। শিরা উপশিরার কথা বলতে বলে রাখা ভালো যে, এই প্রকার হাত সবচেয়ে বেশি দৃষ্টি টানে নারীদের। তাইতো ট্যুইটারেও এমন আলোড়ন পরলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*
*